রবিবার, ১৯ মে ২০১৯, ০১:৩৮ অপরাহ্ন

মাগুরায় গৃহবধুকে ধর্ষন ও ভিডিও ধারন, ধর্ষক আটক

  • ক্রাইম ওয়াচ / অপরাধ অনুসন্ধানে ২৪ ঘণ্টা / আপডেট টাইম : বুধবার, ১৫ মে, ২০১৯
ফাইল ছবি

মাগুরা প্রতিনিধি।।

এমাগুরার শ্রীপুর উপজেলার বরিশাট এলাকায় এক গৃহবধূ ধর্ষনের শিকার হয়েছে, এ ঘটনায় ধর্ষক দুই যুবক কে আটকের পর পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী৷ প্রভাবশালীদের তৎপরতার কারনে মামলা দায়েরে বিলম্ব।

জানাযায়, মোঙ্গলবার ভোর বেলা নির্জন রাস্তায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উনিশ বছর বয়সী এক গৃহবধুকে একা পেয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে আনিচুর রহমান (৩২) এ ঘটনা মোবাইলে ভিডিও চিত্র ধারন করে তার অপর সহযোগি বখাটে রবিউল (২৭)। এক পর্যায়ে গ্রামের লোকজন ঘটনাস্থলে পৌছে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। পরে ধর্ষনের ঘটনায় জড়িত দুইজনকে আটক করে পুলিশে দেয়।

মঙ্গলবার ভোরে শ্রীপুর উপজেলার বরিশাট গ্রামে এ ঘটনা ঘটলেও ঘটনাটি ধামা-চাপা দিতে দিনভর নানা নাটকিয়তার পরে অবশেষে এ ঘটনা আলোয় আসে। ধর্ষক আনিচুর ও সহযোগী রবিউল দুজনের বাড়িই বরিশাট গ্রামে। এ বিষয়ে থানায় মামলা দায়েরের ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রভাবশালীদের তৎপরতার কারনে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে বলে জানান শ্রীপুর থানা পুলিশ ।

ঘটনার শিকার গৃহবধু জানান, স্বামীর সাথে মনমালিন্য হওয়ায় রাগ করে সোমবার সন্ধ্যার পরে শ্বশুরবাড়ি শ্রীপুর উপজেলার চর-শ্রীপুর গ্রাম থেকে পাশের হরিন্দি গ্রামের একটি বাড়িতে আশ্রয় নেন তিনি। এরপর ভোরবেলায় নির্জন রাস্তা দিয়ে হেটে বরিশাট গ্রামের পেট্রোল পাম্পের কাছাকাছি পৌছালে দুই যুবক তার পিছু নেয়। এক পর্যায়ে বখাটে যুবকরা তার মুখ চেপে জোর করে বরিশাট গ্রামের শ্মশানের পাশে একটি বাগানে নিয়ে যায়। এরপর একজন তাকে ধর্ষণ করে এবং অন্যজন মোবাইলে ধর্ষনের ভিডিও চিত্র ধারণ করে। এ সময় তিনি চিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন জড়ো হয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে তিনি স্বামী বাড়িতে ফিরে আসেন।

গ্রামের লোকজন দুই বখাটেকে ধরে মঙ্গলবার সকালেই শ্রীপুর থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করেন, ধর্ষক দুই যুবককে বাচাঁতে বরিশাট গ্রামের কতিপয় প্রভাবশালী নেতা ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহের চেষ্টা শুরু করেন। এক পর্যায়ে শ্রীপুর থানার ওসি মো: মহাবুবুর রহমান বিকেলে ধর্ষণের শিকার গৃহবধুর শ্বশুড়বাড়ি গিয়ে ভিকটিমের কাছে ঘটনা শুনে তাদেরকে থানায় নিয়ে আসেন। কিন্তু প্রবাবশালীদের তৎপরতার কারনে প্রথমে ধর্ষন মামলা দায়েরের ক্ষেত্রে কিছুটা উদাসীনতা থাকলেও বিলম্বে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ওসি মো: মাহাবুবুর রহমান বলেন, আটক আনিচুর ধর্ষণ করে এবং রবিউল মোবাইলে তা ভিডিও ধারণ করে। আনিচ বরিশাট গ্রামের আজিজ রহমানের ছেলে এবং রবিউল একই গ্রামের সাজ্জাদ হোসেনের ছেলে। এ ঘটনায় গতকাল রাতে শ্রীপুর থানায় একটি ধর্ষনের মামলা হয়েছে, প্রাথমিক সত্যতা যাচাই-বাছাই এর জন্য কিছুটা বিলম্ব হয়, মামলার আসামীদের জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় জড়িত আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে এবং আজ বুধবার ভিকটিমের ডাক্তারী পরিক্ষার সম্পুর্ন করতে মাগুরা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© ২০১৯ সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত “ক্রাইম ওয়াচ
Theme Download From ThemesBazar.Com