শুক্রবার, ১৭ মে ২০১৯, ০৮:১১ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ :
লক্ষ্মীপুরে ১৪’শ পিচ ইয়াবাসহ মাদক সম্রাট আটক বান্দরবানে শেল বিস্ফোরণে ১ সেনা সদস্য নিহত, আহত ৯ গৃহবধূকে ভাগিয়ে নেওয়ায় হামদর্দের এমডি’র বিরুদ্ধে লক্ষ্মীপুরে মামলা হত্যা মামলা দায়ের, ছাতকে বন্ধুক যুদ্ধের ঘটনায় অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার রূপপুর প্রকল্পের তৃতীয় রেফারেন্স ইউনিট রুশ গ্রিডে যুক্ত আরো ২৫ পণ্যের লাইসেন্স স্থগিত, দুই প্রতিষ্ঠানের বাতিল চীনা প্রতিষ্ঠানকে সুযোগ-সুবিধা দেয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি সৌদিতে গাছে বেঁধে গৃহকর্মীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে- পররাষ্ট্রমন্ত্রী টাঙ্গাইলে সাবেক উপমন্ত্রী আব্দস সালাম পিন্টুর বিরুদ্ধে চুরি ও মারপিটের মামলা

এক বছরেই গরুর মাংসের দাম বাড়লো ১৫০ টাকা

  • ক্রাইম ওয়াচ / অপরাধ অনুসন্ধানে ২৪ ঘণ্টা / আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৭ মে, ২০১৯
ফাইল ছবি

ক্রাইম ওয়াচ ডেস্ক ।। 

রাজধানীতে মাত্র এক বছরের ব্যবধানে গরুর মাংসের দাম বাড়লো ১৫০ টাকা। এরমধ্যে সিটি করপোরেশন নির্ধারণ করে বাড়িয়েছে ৭৫ টাকা। আর নিজেদের খেয়ালখুশি মতো ব্যবসায়ীরা বাড়িয়েছেন আরো ৭৫ টাকা। সব মিলিয়ে এই রমজানে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৬০০ টাকা কেজি! যা গরুর মাংসের দামের ক্ষেত্রে এক নতুন মাইলফলকই বলা যায়! কারণ এই দাম শোনার পর অনেককেই এই প্রিয় খাবার ছাড়ার কথা বলতে শোনা যাচ্ছে।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর কল্যানপুর নতুন বাজারে গরুর মাংস বিক্রি হতে দেখা গেছে ৬০০ টাকা কেজি। রোজার শুরুতে গরুর মাংসের এই উর্ধমুখী দামে হতাশ ক্রেতারা। যদিও সিটি করপোরেশন থেকে ৫২৫ টাকা কেজি দরে গরুর মাংস বিক্রির জন্য দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। কল্যানপুর ছাড়াও রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে সিটি করপোরেশনের ধার্যকৃত মূল্যের চেয়ে কোথাও ১০০ টাকা বেশি দরে মাংস বিক্রি করতে দেখা গেছে। গত বছরের রোজার সময় সিটি করপোরেশন গরুর মাংসের দাম নির্ধারণ করে ৪৫০ টাকা। এ বছর তা বাড়িয়ে করা হয় ৫২৫ টাকা। কিন্তু ব্যবসায়ীরা বিক্রি করছে ৬০০ টাকা করে। যা গত বছরের তুলনায় দেড়শ টাকা বেশি।

গত সোমবার ডিএসসিসির নগর ভবনে মাংস ব্যবসায়ী প্রতিনিধিসহ ডিএসসিসি ও ডিএনসিসির কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়। নবনির্ধারিত দাম অনুসারে প্রতি কেজি দেশি গরুর মাংস ৫২৫ টাকা, বিদেশি গরুর মাংস ৫০০ ও মহিষের মাংস ৪৮০, খাসির মাংস ৭৫০ এবং ভেড়া ও ছাগীর মাংস ৬৫০ টাকা ধরে বিক্রির জন্য দাম বেঁধে দেয়া হয়।

যদিও ডিএসসিসির ঘোষণায় বলা হয়, বেঁধে দেয়া এই দাম না মানলে ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সেসময় মেয়র বলেন, ‘আমরা এর আগে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। তারা আমাদের জানিয়েছেন দ্রব্যমূল্য গতবছরের তুলনায় এবার কোনোভাবেই বাড়বে না। বরং কিছুটা হলেও কমবে। হোটেল রেস্তোরার মালিকদের সঙ্গেও বৈঠক করেছি। তারাও যাতে খাবার স্থাস্থ্যসম্মত রাখে সে জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’ মাংসের নবনির্ধারিত দামের ক্ষেত্রে যাতে কোনো অনিয়ম না হয় সেজন্য ৭ মে থেকেই বাজারে থাকবে ডিএসসিসির বাজার মনিটরিং টিম। কোনো ব্যবসায়ীর অনিয়মের অভিযোগ ও প্রমাণ পাওয়া গেলেই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© ২০১৯ সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত “ক্রাইম ওয়াচ
Theme Download From ThemesBazar.Com