,

ThemesBazar.Com

এবার নড়িয়া’য় যুবলীগ নেতার হামলার স্বীকার সাংবাদিক!

শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার চামটা ইউনিয়নের যুবলীগ সভাপতি মামুন গাজী শরীয়তপুর জেলায় দ্বায়িত্বরত সাংবাদিক হাফিজুর রহমান কে বেধড়ক মারধর করেছে এতে উক্ত গনমাধ্যমকর্মী অসুস্থ্য হয়ে পড়লে গনমাধ্যমকর্মীদের সহায়তায় নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অাছে।

 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে জানা যায়, উক্ত গনমাধ্যনকর্মী হাফিজুর রহমান বেশ কয়েকটি অনলাইন মিডিয়ায় দ্বায়িত্বরত এবং অালিফ টিভি’র শরীয়তপুর প্রতিনিধি। গত পরশুদিন ১৫জুলাই রাতে একই উপজেলার চামটা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত রবিউল মাদবরের ছেলে বাশার মাদবর ও একই গ্রামের সুমন ছৈয়ালের স্ত্রী জান্নাত বেগম পরকিয়া সম্পর্কে লিপ্ত হয়ে অসামাজিক কার্যকলাপ করার সময় হাতে নাতে ধরা পড়ে যায় স্বামী সুমন ছৈয়ালের নিকট।

উক্ত সংবাদ প্রচার করায় চামটা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মামুন গাজী প্রথমে মোবাইলফোনপ হুমকি দেন, পরবর্তীতে ডিঙ্গামনিক ইউনিয়নের গোলার বাজার এসে বাজার এলাকায় অতর্কিত ভাবে হামলা করে মাথা এবং ঘাড়ে কিল ঘুসী চর থাপ্পর মারতে থাকে এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে এবং হুমকি দেয় “এর পর কোনদিন যদি দেখি অামার এলাকায় কোন কাজে গেছোস তাইলে মাইরা ফালাবো”।

মারধরের সময় স্থানীয়রা অামাকে সরিয়ে অানলে, মার-ধরের কারনে কিছুক্ষন পর অারো অসুস্থ্য হয়ে পড়লে সাংবাদিক নূরে অালম জিকুর মাধ্যমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য অাসেন।

 

নূরে অালন জিকু বলেন, হাসপাতালে অাসার সময় বেশ কয়েকবার বমি করেছে হাফিজুর রহমান, তখন উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সহ অন্যান্য সাংবাদিকদের ফোন করে হাসপাতালে নিয়ে অাসি। নড়িয়া থানার ওসি অাসলাম উদ্দিন, এসিল্যান্ড নড়িয়া হাফিজ কে দেখতে হাসপাতালে এসেছিলেন।

 

নড়িয়া থানা পুলিশসূত্রে জানা যায়, ঘটনায় জরিতদের বিষয়ে অাইনী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দিবে বলে জানিয়েছে ভিকটিমের পরিবার।

 

উক্ত মামুন গাজী পূর্বদিনারা গনি গাজির ছেলে, তার বিরুদ্ধে নানা ধরনের বেঅাইনী তৎপরতা এবল নানা ধরনের মারপিটের অভিযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা। চামটা ইউনিয়নের যুবলীগের সভাপতি হওয়ার পর থেকে মামুন অারো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে, স্থানীয় লোকজনের সাথে হুমকি ধামকি দিয়ে কথা বলেন তিনি।

 

এই ঘটনায় সাংবাদিকরা সবাই তীব্র নিন্দা জানিয়ে হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার এবং বিচার দাবী করে বলেছেন, তারা যে দলেরই কর্মী বা নেতা হোক, তাদের বিরুদ্ধে শতভাগ অাইনী ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

এইচ এম অাতিক ইকবাল, স্টাফরিপোর্টার।

ThemesBazar.Com

     এই বিভাগের আরো খবর