,

ThemesBazar.Com
ফাইল ছবি

নড়াইলে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মৃত্যু তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন

নড়াইলের লক্ষীপাশা মিজানুর নার্সিং হোমের কর্তব্যরত ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নিহতের পরিবার সুত্রে জানা যায়, নড়াইলের শালনগর ইউনিয়নের চরশালনগর গ্রামের ইমদাদুলের শেখের স্ত্রী মিতা খানম (২২) কে গতকাল বিকালে নড়াইলের লক্ষীপাশা মিজানুর নার্সিং হোমে ভর্তি করা হয়।

পরে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ মিতাকে রাতেই সিজার করার পরামর্শ দেয়। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের রিপোটে, মিতার পরিবার ও ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের সাথে চুক্তি মোতাবেক রাতেই নড়াইল সদর হাসপাতালের ডাক্তার সুব্রত কুমার মিতাকে সিজার করে।

এ সময় অপারেশন রুমে মিতার চিৎকারে শুনে স্বজনরা অপারেশন রুমে ঢোকার চেষ্টা করে এবং তারা রোগীর সমস্যা জানতে চেষ্টা করে। কিন্তু ক্লিনিকের নার্সরা রোগীর কোন সমস্যা নেই বলে কিছুক্ষন পর একটি শিশু বাচ্চা স্বজনের হাতে দেয়।

এর প্রায় দুই ঘন্টা পরও প্রসূতিকে অপারেশন থিয়েটার থেকে বের না করে ডাক্তারসহ ক্লিনিকের লোকজন এদিক ওদিক ছোটা ছুটি করতে থাকে এবং কিছু সময় পর প্রসূতির অভিভাবকদের ডেকে বলে মিতাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করাতে হবে।

তড়িঘড়ি করে ওই ক্লিনিকের লোকেরা নিজেরাই এ্যাম্বুলেন্স এনে মিতাকে তুলে দেওয়ার সময় স্বজনরা দেখে প্রসূতির জিহবা বের হয়ে আছে এবং মৃত বলে ধারনা করে। তখন ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ বলে তার এখনো জ্ঞান ফেরেনি। এ অবস্থায় মিতাকে নিয়ে তার স্বজনরা খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায় রোগী অনেক আগেই মারা গেছে।

নিহত মিতার শাশুড়ী তাসলিমা বেগম জানান, মিজানুর নার্সিং হোমের লোকজন ও ডাক্তারের অবহেলার কারণে অপারেশন রুমেই তার মৃত্যু হয়েছে। এ ব্যপারে নড়াইলের লক্ষীপাশা মিজানুর নার্সিং হোমের মালিক মিজানুর ও ডাক্তার সুব্রত কুমার নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়কে জানান, প্রসূতি মিতার শ্বাসকষ্টের কারণে সিজারের সময় অসুস্থ্য হয়ে পড়লে খুলনা মেডিকেল হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়।

নড়াইলের সিভিল সার্জন ডাঃ আসাদ উজ্জামান নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়কে জানান, নড়াইলের শালনগর ইউনিয়নের চরশালনগর গ্রামের ইমদাদুলের শেখের স্ত্রী মিতা খানম (২২) কে গত সোমবার বিকালে নড়াইলের লক্ষীপাশা মিজানুর নার্সিং হোমে ভর্তি করা হয়।

পরে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ মিতাকে রাতেই সিজার করার পরামর্শ দেয়। এ ব্যপারে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। থানার অফিসার ইনচার্জ প্রবীর কুমার বিশ্বাস নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়কে জানান, এ ব্যাপারে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।#

 

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি■

ThemesBazar.Com

     এই বিভাগের আরো খবর