,

ThemesBazar.Com
ফাইল ছবি

নড়িয়ায় মুক্তিযোদ্ধার পরিবার লাঞ্চিত; পৌর কমিশনার সহ অাটক ৩

শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া পৌর কাউন্সিলর মোঃ অাবুল অাবুল বাশার ফকিরকে জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে সংঘর্ষে ঘটনায় অাটক করা হয়েছে। অাবুল বাশার ফকির নড়িয়া পৌরসভার ০১ নং ওয়ার্ড কমিশনার।

 

সরেজমিনে গিয়ে জানাযায়, নড়িয়া পৌর ০১ ওয়ার্ড কাউন্সিলর অাবুল বাশার ফকিরের বাড়ি সংলগ্ন প্রায় সোয়া তিনকরা সম্পদ স্থানীয় মিলন জমাদ্দার নিজ মালিকানায় থেকে ২০১৪সালে মুক্তিযোদ্ধা অাবুল কালাম ঢালীর কাছে ৩০লক্ষ টাকা দলিল মূলে বিক্রয় করতে চাইলে তিনি ক্রয় করেন এবং তার দুই ছেলে অাবদুল্লাহ অাল মামুন(রতন) এবং ইকবাল হোসেনের নামে দলিল করে জমিটির মালিক হন।

 

মুক্তিযোদ্ধা অাবুল কালাম ঢালী কেদারপুর ইউনিয়নের ০২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ছিলেন। বর্তমানে পদ্মায় বিলীন হয়েছে তার সমস্ত সম্পদ। তাই নড়িয়া পৌরসভার ০১নং ওয়ার্ডে ক্রয়কৃত নিজের জমিতে ভাঙ্গনের কবল হতে ঘর বাড়ি ভেঙ্গে নিয়ে অাজ মঙ্গলবার ১০জুলাই নিজ জমিতে প্রবেশ করলে পৌর কমিশনার বাদশা ফকিরসহ তার স্বজনরা বাধা দেয়, তিনি দাবী করেন এই জমি তিনিই ভোগ করবেন, কারন হিসেবে তার বংশীয় ওয়ারিশ সূত্রে তিনিই ক্রয় করার দাবী রাখেন। কিন্তু ক্রয়কৃত জমির মালিক মুক্তিযোদ্ধা নিজ জমিতে বাড়ি করতে চাইলে উক্ত পৌর কাউন্সিলর অাবুল বাশার তার লোকজন নিয়ে হামলা চালায়।

 

হামলার শিকার মুক্তিযুদ্ধা এবং তার পরিবারের দেয়া তথ্যে জানতে পারি, ঘর বাড়ি উঠাতে অামাদের জমিতে গেলে অামাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে তার পর অতর্কিত ভাবেই হামলা চালায়। উক্ত হামলার বর্ননা দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা এম এ কালাম ঢালী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, অামার জমিতে অামার ছেলে মেয়ে নিয়ে নদী ভাঙ্গনের কবল থেকে নিজের বাঁচাতে ঘরবাড়ি নিয়ে অাশ্রয় নিতে গিয়েছি, কিন্তু অাবুল বাশার ফকির ও তার পরিবারের লোকজন অামার ছেলে মেয়ে সহ স্ত্রীকে বেধড়ক মারধর শুরু করে। ঘটনার অাকস্মিকতায় অামি কিছুই বুজে উঠতে পারি নাই। অামার পরিবারের লোকজন কে বাঁচাতে গেলে কমিশনার অাবুল বাশার হুমকি দেয় “তোর মতো মুক্তিযোদ্ধারে কাইটা কচুরীপানায় ঢুকাইয়া রাখলে অানার কিছুই হইবো না”। একই বাড়ির ওসি সালামের বোন সেলিনা অামার তিন মেয়ে ও স্ত্রী কে
হুমকি দেয় “তোরা এই ঘরে প্রবেশ করলে তোদের হাত পা কাইটা দিবো” এর পর কমিশনারের স্ত্রী অার ওসি সালামের বোন সেলিনা, কমিশনারের ভাইয়ের মেয়ে লায়লা সহ অারোও ৫-৬ জন অামার ৩মেয়ে এবং স্ত্রী কে মারধর করলো। অামি ওদের সাথে পারলাম না, কারন বয়স হয়েছে অামার, অামি একজন মুক্তিযোদ্ধা, সেবাহিনীর অবসর প্রাপ্ত সারজেন্ট, অার অামার পরিবারকেই এভাবে লাঞ্চিত হতে হলো। অামি এবং অামার পরিবারের লোকজন হামলার শিকার হয়ে জীবন বাঁচাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে গিয়েছিলাম তাকে অফিসে না পেয়ে এসিল্যান্ড অফিসে গিয়েছিলাম তাদের অবহিত করেছি। অামি এর বিচার চাই।

হামলার বিষয়ে পৌর কমিশনার এবং তার পরিবারের কারো সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

 

নড়িয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি অাসলাম উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, জমি নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা চলছে এমন তথ্য পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই এবং ঘটনাস্থল থেকে নড়িয়া পৌরসভা ১নং ওয়ার্ড কমিশনার সহ মোট ০৩ জন কে অাটক করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পর্যাপ্ত পুলিশ সদস্য রয়েছে ঘটনাস্থলে। এখনো পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি, লিখিত অভিযোগ পেলে অবশ্যই অাইনানুগ ব্যবস্থা নিবো।

 

এইচ এম অাতিক ইকবাল,স্টাফরিপোর্টার।

ThemesBazar.Com

     এই বিভাগের আরো খবর