শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ০৩:৫৯ অপরাহ্ন

দুদকের মামলায় ফেঁসে গেলেন সস্ত্রীক সাবেক চেয়ারম্যান জাফর ও ইয়াবা রহিম

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৬০ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার।।

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান জাফর আহমদ ও তার স্ত্রী আমেনা খাতুনের বিরুদ্ধে আয় বহির্ভূর সম্পদ অর্জনের অভিযোগে পৃথক দু’টি মামলা ও পৌরসভার অলিয়াবাদ এলাকার আব্দুর রহিমের নামে আরেক মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দ্বায়ে পৃথক ১টি মামলা সহ মোট ৩টি মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।গতকাল সোমবার রাতে চট্টগ্রাম ডাবল মুড়িং থানায় দুদক চট্ট-২ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক রিয়াজ উদ্দীন বাদী হয়ে পৃথক এই তিনটি মামলা দায়ের করেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে,সাবেক টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আহমদ দুদকে দাখিলকৃত সম্পদ বিবরনীতে,৩কোটি ৬০ লাখ ৬হাজার ১০ টাকার হিসাব গুপন রেখেছেন।তাছাড়া আয়ের সাথে অসামঞ্জস্যপূর্ন ভাবে জনপ্রতিনিধি থাকা কালীন ক্ষমতার অপব্যবহার করে ৪ কোটি ৯০ লাখ ৬৯ হাজার ১২৪ টাকা সম্পদ ভোগ দখলের সন্ধান পাওয়া গেছে।২০১৭ সালে দাখিল কৃত সম্পদ বিবিরনীতে ২কোটি ৬১ লাখ ৫৯ হাজার ২৬৪ টাকার সম্পদের তথ্য প্রদান করলেও দুদকের অনুসন্ধানে ৬ কোটি ২৩ লাখ ৮ হাজার ৭৭৫ টাকার সম্পদের খোঁজ মিলেছে।

এছাড়া দুদকে তার স্ত্রী আমেনা খাতুনের নামে ৩ লাখ ৪৫ হাজার ২৯৮ টাকা স্থাবর অস্থাবর সম্পদের বিবরণ দাখিল করেন।কিন্তু দুদকের অনুসন্ধানে ৩০ লাখ ৩ হাজার ৩২ টাকার সম্পদের খোঁজ পেয়েছে।এসংক্রান্ত বিষয়ে তার বিরুদ্ধেও পৃথক ভাবে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অপরদিকে,টেকনাফ পৌরসভার অলিয়াবাদ এলাকার মৃত আমির হোসেন ড্রাইভারের পুত্র তালিকা ভূক্ত ইয়াবা কারবারী আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধানে ১ কোটি ১০ লাখ ৬৮ হাজার ৫৬০ টাকার স্থাবর ও ৬০ লাখ টাকার অস্থাবর সম্পত্তির সন্ধান পেয়েছে।এসব সম্পদ অর্জনে তার বৈধ কোন আয়ের উৎস দেখাতে পারেনি আব্দুর রহিম।এই সব সম্পদের উৎস হিসেবে মাদক ব্যবসা বলে জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসন।এই বিষয়ে দুদকের উক্ত কর্মকর্তা বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধেও একটি মামলা দায়ের করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© ২০১৯ সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত “ক্রাইম ওয়াচ
Theme Download From ThemesBazar.Com