,

ThemesBazar.Com

পাবনায় একই পরিবারের তিনজনকে কুপিয়ে হত্যা

পাবনার বেড়া উপজেলায় নেশার টাকা না পেয়ে মা’সহ পরিবারের তিন সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা করেছে তুহিন (১৫) নামে এক মাদকাসক্ত কিশোর।

আজ বুধবার ভোরে উপজেলার নতুন ভারেঙ্গা ইউনিয়নের সোনাপদ্মা নতুন চারা বটতলা নামক গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বেড়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশিষ বিন হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন-ওই গ্রামের মিঠু হোসেনের স্ত্রী বুলি খাতুন (৪০), ছোট ছেলে তুষার হোসেন (১০) ও বুলি খাতুনের বোন নছিমন খাতুন (৪৫)। বুলির বড় ছেলে তুহিন হোসেন (২২) এই তিনজনকে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, নতুন ভারেঙ্গা ইউনিয়নের সোনাপদ্মা গ্রামের মিঠু কানার বড় ছেলে তুহিন (১৫) দীর্ঘদিন ধরে মাদকাসক্ত। সে স্থানীয় ভারেঙ্গা একাডেমির দশম শ্রেণির ছাত্র। মাস ছয়েক আগে একই স্কুলের সহপাঠী রুণার সঙ্গে তার বিয়ে হয়। নেশার টাকার জন্য প্রায়ই পরিবারের সদস্যদের ওপর অত্যাচার করতো। গত মঙ্গলবার রাতে নেশা করার জন্য তার মা বুলবুলি বেগমের কাছে টাকা চায়। বুলবুলি বেগম টাকা দিতে অস্বীকার করলে মাংস কাটার চাপাতি দিয়ে তাকে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

এ সময় তুহিনের খালা মরিয়ম বেগম (৪৫) ও ছোট ভাই তুষার (১০) এগিয়ে এলে তাদেরও এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে।

পরে প্রতিবেশীরা থানায় খবর দিলে সকালে পুলিশ বাড়ির উঠোন থেকে তিনজনের লাশ উদ্ধার করে। ঘটনার পর থেকে তুহিন পলাতক রয়েছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশিষ বিন হাসান জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। কী কারণে এ হত্যাকাণ্ড তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ThemesBazar.Com

     এই বিভাগের আরো খবর